Home বাংলাদেশ জাতীয় ভাস্কর্য সম্পর্কে বক্তব্য দেওয়ার জ্ঞান আমার নেই: ইবরাহিম

ভাস্কর্য সম্পর্কে বক্তব্য দেওয়ার জ্ঞান আমার নেই: ইবরাহিম

ইসলামের দৃষ্টিতে ভাস্কর্য সম্পর্কে বক্তব্য দেওয়ার মতো জ্ঞান নেই বলে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চান না ২০ দলীয় জোটের শরিক কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক। রাজনীতির মাঠে চলমান ইস্যু ভাস্কর্য সম্পর্কে মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন, “ভাস্কর্য নিয়ে আমার কোনো বক্তব্য নাই, কারণ এ বিষয়ে বক্তব্য দেওয়ার মতো জ্ঞান আমার নাই।

জাতীয়তাবাদী ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে  চলমান ভাস্কর্য ইস্যু নিয়ে কোনো বক্তব্য আসছে না কেন?

এমন প্রশ্নের জবাবে এই বীর মুক্তিযোদ্ধা বলেন, “আমি এ প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করছি না। কারণ আমি এ প্রসঙ্গে যথেষ্ঠ জ্ঞানী না। আমি শুধু আবেদন করতে পারি, দেশে শান্তিশৃঙ্খলা প্রয়োজন। দ্বীনি মূল্যবোধকে সম্মান করা প্রয়োজন। মানুষের অনুভূতিকে সম্মান করা প্রয়োজন। বিভিন্ন কারণে মানুষ ব্যথিত হয়। হঠাৎ করে একটা টেলিভিশনের আলোচনায় দেখলাম, একজন সরকারপন্থী আলেম বলছেন, কাবা শরিফও একটা স্ট্যাচু। এজন্য আমি কী বলতে কী বলবো বুঝতে পারছিলাম না। এর থেকে বিরত থাকাই ভালো। আমি তার কথাটা পছন্দ করিনি। আওয়ামী লীগ এবং ওলামা লীগের দ্বীনি ব্যাখ্যার সঙ্গে আমি একমত নাও হতে পারি। এজন্য কিছু বলছি না। ”

দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে জেনারেল ইবরাহিম বলেন, “বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করা ভীষণ কষ্টকর। কারণ আমরা সাধারণ মানুষ সরল পথে চলার রাজনৈতিক কর্মী। কিন্তু সরকারে যারা আছেন তারা অসাধারণ মানুষ, বক্র পথে চলার কর্মী। দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তাদের ষড়যন্ত্রের মোকাবিলা করার জন্য এই মুহূর্তে আমরা হিমশিম খাচ্ছি। কারণ হচ্ছে তাদের পেছনের শক্তি, সীমান্তের এপারে, সীমান্তের ওপারে। তারা আমাদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। বাংলাদেশের জনগণ প্রচণ্ড রকমের কষ্টে আছে। দৃশ্যমান যত কর্মকাণ্ড, এগুলো হচ্ছে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড-ভৌত কাঠামো উন্নয়নের। এটা দিয়ে মানুষকে বুঝ দিচ্ছে যে দেশ অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। আসলে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে না। ”

২০ দলীয় জোটের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “২০ দলীয় জোট এখন সাংগঠনিকভাবে দুর্বল অবস্থায় আছে। কারণ প্রধান শরিক বিএনপি এখনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি যে উনারা জোটকে নিয়ে কতটুকু আগাবেন নাকি আগাবেন না। আমাদের অনুমান বলছে, উনাদের মধ্যে একটা প্রশ্ন জেগেছে যে উনারা জোট নিয়ে রাজনীতি করবেন না কি একলা করবেন। কল্যাণ পার্টির মতামত হচ্ছে, দশে মিলি করি কাজ হারি জিতি নাহি লাজ। আমরা একতাবদ্ধ কাজ করতে পছন্দ করি। এটা ভালো ফলাফল দেয়। কিন্তু উনারা যতক্ষণে পুনরায় সক্রিয় না হচ্ছেন ততক্ষণ আমরাতো কিছু বলতে পারছি না। এরকমভাবে চলতে থাকলে হয়তোবা অন্যকেউ আহবান করবেন আসুন আমরা আলাদা জোট করি। তবে আমাদের প্রধান পছন্দ, জাতীয়তাবাদী শক্তির প্রধান শক্তি বিএনপি। ”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

শীতে যেসব ভুলে মুখ কালচে দেখায়

শীতে প্রকৃতি যেমন থাকে উস্কখুস্ক, তেমনি ত্বকেরও একই অবস্থা। শীতে ত্বকের চাই বাড়তি যত্ন। অনেকসময় শীত আসলে আমাদের মুখের রঙ কালচে দেখায়। এসব থেকে...

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ২১৯৮ জন

নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরো ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ছয় হাজার ৮৭৪ জনে দাঁড়িয়েছে। এ...

একবার অর্ডার করা খাবার ৪২ বার পাঠাল ফুডপান্ডা!

অনলাইন অ্যাপের নতুন এক সমস্যা দেখল ফিলিপাইনবাসী। একবার খাবার অর্ডার করে ৪২ বার খাবারের প্যাকেট পেয়েছেন এক ব্যক্তি। ঘটনা ফিলিপাইনের সেবু শহরে।  মূলত প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণেই এমনটা...

ই-কমার্স নীতিমালা: সাত দিনে পণ্য ডেলিভারি না দিলে জরিমানা

ঢাকা: অর্ডার সম্পন্ন হওয়ার পরে এলাকা ভেদে সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যে পণ্য ডেলিভারি না দিলে জরিমানা গুনতে হবে ই- কমার্স কোম্পানিকে এটি করতে ব্যর্থ হলে...

Recent Comments